পিত্ত পাথরি (Gall Stone) চিকিৎসায় ব্যবহৃত প্রধান হোমিওপ্যাথি ওষুধ সমূহের লক্ষণ নির্দেশিকা

Posted

পিত্ত পাথরির কার্যকর হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা
পিত্ত পাথরির কার্যকর হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা

কোন কারণবশত পিত্ত কোষে বা পিত্ত নালীতে পিত্তরস জমাট বেঁধে প্রস্তর কণার আকার ধারণ করে। একে পিত্ত পাথরি বলে। হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা পদ্ধতি মতে এমন কিছু ঔষধ আছে যা সঠিক নিয়মে ব্যবহার করলে পিত্ত পাথরি সমস্যার কার্যকর ও স্থায়ী চিকিৎসা সম্ভব।

পিত্ত পাথরি (Gall Stone) হবার কারণ

খাদ্যাভ্যাস, অনিয়মিত আহার, অনাহারে থাকা প্রভৃতি কারণে অনেক সময় পিত্ত কোষের পিত্ত নিঃসরণ প্রক্রিয়ায় বিঘ্ন সৃষ্টি হয়।

এতে করে কখনো কখনো পিত্ত কোষে বা পিত্তবাহী নালীতে পিত্তরস জমাট বেঁধে যায় ও প্রদাহের সৃষ্টি করে। ফলশ্রুতিতে ধীরে ধীরে পিত্ত পাথরি দেখা দেয়।

পিত্ত পাথরি খুব ছোট হলে বা বালুকণার মতো থাকলে অনেক সময় আপনা থেকেই বেরিয়ে যায়।

এই পাথরি যতক্ষণ পিত্ত কোষে থাকে ততক্ষণ বেশি বেদনা অনুভব হয় না।

কিন্তু যখন পিত্ত কোষ থেকে পিত্তনালিতে এসে পড়ে তখনই প্রচন্ড বেদনা হয় এবং রোগী বেদনায় অস্থির হয়ে পড়ে।

পিত্ত পাথরির প্রধান কয়েকটি হোমিওপ্যাথি ওষুধের নাম ও তাদের প্রয়োগ নির্দেশক লক্ষণ সমূহ

কার্ডুয়াস মেরি

বেদনা ও স্পর্শকাতরতার সঙ্গে পিত্তকোষ প্রদাহ। পিত্ত পাথরি জনিত বেদনা ও যকৃতের বেদনায় ভাল কাজ করে।

যকৃতের বৃদ্ধি সহ পিত্তশিলা রোগ।

যকৃত এবং যকৃত শিরামণ্ডল এর প্রধান ক্রিয়া কেন্দ্র।

পিত্ত পাথরি জনিত ভয়ানক শূল বেদনায় এর মূল অরিষ্ট উপকারী।

লিভার বা যকৃতে টাটানি বেদনা। বেদনা ডানদিক থেকে বামদিকে বিস্তার লাভ করে।

মুখে তিক্ত স্বাদ, গা বমি ও পিত্ত প্রবনতা। শরীরের ত্বক, চক্ষুর শ্বেতাংশ, জিহ্বা পিতবর্ণ ধারণ করে।

পীতবর্ণের প্রস্রাব, একবার উদরাময়, আবার কোষ্ঠবদ্ধতা। সপ্তম পঞ্জর স্থানে বেদনা, বেদনা উপর বক্ষে পরিচালিত হয়।

সবুজ বর্ণের পদার্থ বমি হয়।

সিয়ানোথাস

যকৃত বেদনা ও পিত্তশিলায় ফলদায়ক। নাভিদেশে বেদনা, কামরানি, চিনচিন ব্যথা।

কোষ্ঠকাঠিন্য, কাদার মতো মল, জিহ্বা হরিদ্রাবর্ণ। কামলা রোগ, তলপেট যেন দড়ি দিয়ে কষে ধরছে আবার ঢিলা করছে।

কোলেস্টেরিনাম

যকৃতের ক্যান্সার, যকৃতের রক্তাধিক্য। যকৃতে প্রচন্ড বেদনা, হাত দিয়ে পেট চেপে ধরে। চলাফেরা করতে কষ্ট হয়, বেদনায় অস্থির।

চেলিডোনিয়াম

যকৃতের ঔষধ। যকৃতের বিভিন্ন রোগে ব্যবহার হয়। যকৃত ও পিত্ত কোষের ক্রিয়ার অভাব। পিত্তশিলা।

কোষ্ঠকাঠিন্য, মল শক্ত, ভেড়ার নাদের মতো। মল আঠাযুক্ত, মাটির বর্ণ।

পিত্তথলী প্রদাহ এবং পিত্ত পাথরি শূল। মুখে তিক্ত স্বাদ।

জিহ্বার মধ্যভাগে গাঢ় হরিদ্রাবর্ণ ময়লাবৃত অথচ ধারগুলো লালবর্ণ।

চোখ, মুখ, গায়ের চামড়া হলদে বর্ণ। সকালে ও সন্ধ্যায় যকৃত বেদনা বৃদ্ধি।

ডান স্ক্যাপুলায় ও কাঁধে স্থায়ীভাবে মৃদু ও তীব্র বেদনা।

যকৃতের সূঁচ ফোটানো বেদনা পৃষ্ঠদেশ পর্যন্ত পরিচালিত হয়।

গরম পানীয় ভিন্ন অন্য কোন খাবার পেটে রাখতে পারে না। শীতল জল পানে বমি ভাব বৃদ্ধি পায়।

বার্বারিস ভালগারিস

পিত্তথলির প্রদাহ ও পিত্ত পাথরি শূল বেদনা, সেই সাথে ন্যাবা, কাদা বা ছাই রং এর মল।

পাথরি নিঃসরণ কালে বেদনায় মনে হয় যেন কিছু একটা ফুঁটছে।

একটু পর পর লিভার প্রদেশে বেদনা। ইলিয়াম অঞ্চলে খোঁচা মারা ব্যথা। চাপ দিলে, পেট ফুললে বেদনা বৃদ্ধি। কোষ্ঠকাঠিন্য ইত্যাদি।

বেদনার স্থান, লক্ষণ পরিবর্তনশীল। পুনঃ পুনঃ মলবেগ। পর্যায়ক্রমে পিপাসা ও ক্ষুধা। আহারের পর বার বার উদগার উঠে।

প্রস্রাবের বেগ ধরে রাখতে পারে না। ঘোর লাল বর্ণের শ্লেষ্মাময় প্রস্রাব।

কিডনি হতে মূত্রথলি পর্যন্ত কাটা ছেঁড়া মতো বেদনা। প্রস্রাব করার সময় মূত্রনালীতে জ্বালা।

লরোসিরেসাস

পাকস্থলীতে প্রচন্ড বেদনা, কথা বলতে কষ্ট হয়। মুখের পেশী ও অন্ননালীর খিঁচুনি।

যকৃত প্রদাহ, স্প্লীন প্রদাহ। পানীয় দ্রব্য গড় গড় করে গলনালী দিয়ে পাকস্থলীতে নামে।

হৃদরোগগ্রস্ত রোগীর এই ঔষধে উপকার হয়।

চায়না

লিভার দোষের কারণে, ম্যালেরিয়া জ্বরের ফলে পিত্ত থলি প্রদাহের এটা উপকারী।

অবসাদকর স্রাব, জীবনীশক্তি বর্ধক যেকোনো রসের ক্ষয়।

উদরে পিত্তশিলাজনিত শূল বেদনা। অত্যধিক শূল বেদনাসহ পেট ফাঁপা। আহারের পর বার বার উদগার উঠে।

প্লীহা ও যকৃৎ বর্ধিত, কামলা রোগ।

মল নরম, সাদাটে বা পিতবর্ণের দূর্গন্ধযুক্ত অতিকষ্টে নির্গত হয়। পেটে হড়হড় গড়গড় শব্দ, প্রায়ই ফুলে উঠে।

স্নায়বিক উত্তেজনা। যকৃত ও প্লীহার বিবৃদ্ধিসহ ন্যাবা ও শোথেও উপকারী।

ক্যালকেরিয়া কার্ব

পিত্তশিলার উৎকৃষ্ট ওষুধ। শূল বেদনা, পিত্তশূল দ্রুত নিবারণে কার্যকর। রোগী মোটা, ফর্সা, থলথলে ঘর্ম প্রধান। গা ভিজা থাকে এবং টক গন্ধ ছাড়ে।

ডিজিটেলিস

যকৃত স্ফীত ও কঠিন, সামান্য পরিশ্রমেই দুর্বলতাবোধ। জণ্ডিস, চলাফেরা করলে মাথা ঘোরে। শীতল জলে খেলে কপালে ভীষণ ব্যথা। মল সাদা, খড়ি মাটির মতো, আঠা আঠা।

ডায়াস্কোরিয়া

শূল বেদনা, উদরের ঊর্ধ্বাংশে বেদনা। প্রাতঃকালে মুখ শুষ্ক, তিক্ত। জিহ্বায় ময়লা প্রলেপ। প্রচন্ড দুর্গন্ধ যুক্ত গ্যাস উদগার। বেদনার স্থান পরিবর্তন করে।

পিত্ত পাথরির বায়োকেমিক চিকিৎসা

ক্যালকেরিয়া ফস

এর প্রয়োগে নতুন করে পিত্ত শিলা আর সৃষ্টি হবেনা। নাভির চারদিকে প্রচন্ড বেদনা। গরম মল, প্রচুর ও জলের মতো। ভয়ানক দুর্গন্ধ যুক্ত বায়ু সশব্দে নির্গত হয়।

নেট্রাম সালফ

পিত্ত পাথরির জন্য পেটে আদৌ কোনও চাপ সহ্য হয় না। এমনকি কোমরে শক্ত করে কাপড় বাঁধতে পারে না। মুখ মলিন ও শুষ্ক। উত্তাপে বেদনার উপশম। সহজে চমকে উঠে।

ম্যাগ ফস

পিত্ত পাথরির প্রচন্ড ব্যাথায় আক্রান্ত স্থানের ব্যাথা চেপে ধরলে বা গরম বাহ্য প্রয়োগে উপশম লক্ষণে ম্যাগ ফস ভালো ফলাফল প্রকাশ করে। এছাড়া পাথরি পিত্ত নালী পথে ঘর্ষণ সৃষ্টি করলে যে ব্যাথার সৃষ্টি করে তা উপশমে চা চামচের ২ চামচ পরিমান গরম পানির সাথে ৪ গ্রেন পরিমান ম্যাগ ফস ১৫-২০ মিনিট পর পর প্রয়োগে ভাল কাজ করে।

প্রাসঙ্গিক লেখাটি পড়ে দেখতে পারেন-

Mag Phos – Best Remedy for the Treatment of Spasmodic Pain

Author
Categories

Book an appointment now
Sharing is Caring